সর্বোচ্চ ভ্যাট প্রদানকারীর সম্মাননা পাচ্ছে যে ১১১ প্রতিষ্ঠান

চলতি বছরের সর্বোচ্চ ভ্যাট (মূসক) প্রদানকারী হিসেবে জাতীয় পর্যায়ের ৯টি ও জেলা পর্যায়ের ১০২টি প্রতিষ্ঠান পুরস্কার ও সম্মাননা পেয়েছে। বুধবার (১৭ নভেম্বর) জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের (এনবিআর) (মূসক-প্রশিক্ষণ ও পুরস্কার) দ্বিতীয় সচিব ফাহমিদা মাহজাবিন স্বাক্ষরিত এক প্রজ্ঞাপনে এ তথ্য তুলে ধরা হয়েছে।

সরকার ঘোষিত ‘সর্বোচ্চ মূল্য সংযোজন কর পরিশোধকারী প্রতিষ্ঠানকে পুরস্কার প্রদান নীতিমালা, ২০০৫ (সংশোধিত)’-এর বিধান অনুযায়ী ২০১৯-২০ অর্থবছরের জন্য এই পুরস্কার দেওয়া হচ্ছে। আগামী ১০ ডিসেম্বর ভ্যাট দিবসে আনুষ্ঠানিকভাবে পুরস্কার ও সম্মাননা দেওয়া হবে।

উৎপাদন, ব্যবসা ও সেবা এই তিন খাতে জাতীয় পর্যায়ে সম্মাননা পেয়েছে ৯টি প্রতিষ্ঠান। উৎপাদন খাতে বৃহৎ করদাতা ইউনিটে এরিস্টোফার্মা লিমিটেড, পাবনার স্কয়ার টয়লেট্রিজ লিমিটেড ও রংপুরের মেসার্স মায়া বিড়ি ফ্যাক্টরি এই পুরস্কার পেয়েছে।

ব্যবসা খাতে পুরস্কার পেয়েছে খুলনার এস এম মটোরস, সিলেটের এমকো বাজাজ ইন্টারন্যাশনাল ও ঢাকার ম্যাবস ইউনিয়ন মটরস লিমিটেড।সেবাখাতে ইডটকো বাংলাদেশ কোং লিমিটেড, গ্রে এডভার্টাইজিং (বাংলাদেশ) লিমিটেড ও রবার্ট বস (বাংলাদেশ) লিমিটেড পুরস্কার পেয়েছে।

এ ছাড়া জেলা পর্যায়ে মোট ১০২টি প্রতিষ্ঠানকে এ বছর সম্মাননা দেওয়া হয়েছে। ঢাকা জেলার ঢাকা থাই লিমিটেড, নর্থ ইন্ড প্রাইভেট লিমিটেড, কিশোরগঞ্জের হেরিটেজ টোবাকো, এমব্রেলা, উবাই পার্ক, গাজীপুরের সিয়াম বাংলা ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেড, কে টি আর এস ইঞ্জিনিয়ারিং ওয়ার্কশপ, জামালপুরের রোকেয়া কেমিক্যাল ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেড, মেসার্স মামিন এন্টারপ্রাইজ, কালাচাঁদ মিষ্টান্ন ভান্ডার, টাঙ্গাইলের মেসার্স যমুনা ট্রেডার্স, নাসির ওপাল গ্লাস এন্ড ক্রোকারিজ ইন্ডাস্ট্রি লিমিটেড, ফনিন্দ্র মিষ্টান্ন ভান্ডার, নরসিংদীর পিএইচপি ইস্পাত লিমিটেড, এম এইচ মটরস, নাইস প্যাক লিমিটেড, নারায়ণগঞ্জের মিটার ডি টেক্ট, আলম মেরিন শিপ বিল্ডার্স লিমিটেড, ময়মনসিংহের নাফকো ফার্মা লিমিটেড, মানিকগঞ্জের আকিজ স্টিল মিলস লিমিটেড, সাগর মটরস, মুন্সীগঞ্জের এস কে আর পি ইলেকট্রিক এন্ড ইলেকট্রনিক্স লিমিটেড, শেরপুরের মেসার্স শেরপুর বাজাজ, হোটেল শাহজাহান, চট্টগ্রামের পদ্মা এলপিজি লিমিটেড, টিভিএস গ্যালারি, টেরাকোটা, কক্সবাজারের পর্যটন হোটেল নেটং, যশোরের জাহাঙ্গীর কেমিক্যাল, মেসার্স ভেনাস অটো, রুরাল রিকনস্ট্রাকশন, ফরিদপুরের শাহী কেমিক্যাল ইন্ডাস্ট্রিজ, মেসার্স ন্যাশনাল মটরস, গোপালগঞ্জের মেসার্স আনিস মটরস, কোটালীপাড়া কেবল ভিশন, কুষ্টিয়ার এ আর এন্টারপ্রাইজ, ঝিনাইদহের বিএন্ড টি মিটার লিমিটেড, জননী অটোস, নড়াইলের এক্সিয়ন মটরস, মাগুরার অনন্যা ফুড প্রোডাক্টস, লাবনী মটরস, সোনার বাংলা হোটেল এন্ড রেস্টুরেন্ট, মেহেরপুরের মেসার্স বিশ্বাস মোটর্স, রাজবাড়ীর আমিন বাজাজ, চুয়াডাঙ্গার এজটেক ফার্মাসিউটিক্যালস লিমিটেড, মেসার্স সৌদি অটো, রংপুরের মেসার্স হরিণ বিড়ি ফ্যাক্টরি, মিলন বাজার, আদ-দ্বীন মাদার কেয়ার লিমিটেড, নীলফামারীর ইকু পেপার মিলস লিমিটেড, মেসার্স আলহাজ্ব কুতুব এন্ড সন্স, গাইবান্ধার ইউনাইটেড ফুট কেয়ার বাংলাদেশ প্রাইভেট লিমিটেড, মেসার্স ইরা বাজাজ, লালমনিরহাটের মেসার্স মতি বিড়ি এন্ড আলম বিড়ি ফ্যাক্টরি, পঞ্চগড়ের মেসার্স কমলেশ ট্রেডার্স, লালমনিরহাটের মেসার্স এন কে মটরস, কুড়িগ্রামের মেসার্স নাসির এন্ড কোং, টি ডি এইচ গেস্ট হাউস, দিনাজপুরের নুর মোটরস এন্ড ইলেকট্রনিক্স, ঠাকুরগাঁওয়ের এ রউফ ট্রেডার্স, চাঁপাইনবাবগঞ্জের আয়েশা এন্টারপ্রাইজ, স্কাইভিউ ইন, জয়পুরহাটের ফাহিম মটরস, নওগাঁর পল্লী এন্টারপ্রাইজ, নাটোরের পি এস এস মেটাল, মেসার্স গনি এন্টারপ্রাইজ, কুইন্স রেস্টুরেন্ট, পাবনার শাপলা প্লাস্টিক প্রাইভেট লিমিটেড, মোল্লা বাজাজ মটরস, সান টেকনোলজিস লিমিটেড, বগুড়ার এবি গ্লাস ইন্ডাস্ট্রিজ, লিম্ব অ্যাসোসিয়েট, রাজশাহীর প্রাণ এগ্রো লিমিটেড, মেসার্স সাব্বির এন্টারপ্রাইজ, মৌলভীবাজারের মেসার্স সাদেক স্টোর, সাউথ সিলেট এন্টারপ্রাইজ, সিলেটের এলপি গ্যাস লিমিটেড, আলিশা মটরস, আনন্দ নিকেতন লিমিটেড, হবিগঞ্জের চারু সিরামিক ইন্ডাস্ট্রিজ, মেসার্স শরিফ ইলেকট্রনিক্স, সুনামগঞ্জের পানসী রেস্টুরেন্ট, খুলনার পোলস এন্ড কংক্রিট লিমিটেড, খুলনা ডক ইয়ার্ড, ঝালকাঠির সাবিহা কেমিক্যাল, পটুয়াখালীর বায়োজেন ফার্মাসিউটিক্যালস, বরগুনার মেসার্স রাব্বানী স্টোর, বরিশালের অমৃত কনজুমার ফুড প্রোডাক্টস লিমিটেড, নাজেম রেস্তোরাঁ, বাগেরহাটের সাউথইস্ট ইউনিয়ন সিরামিক ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেড, ভোলার শেলটেক সিরামিক্স লিমিটেড, শরীয়তপুরের বাজাজ ভিলেজ, সাতক্ষীরার এস এম আবুল বাশার, সুশীলন টাইগার পয়েন্ট, কুমিল্লার মেসার্স শফিউল আলম স্টিল রি রোলিং মিলস, তাওফিকা ফুড এন্ড এগ্রো ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেড, মালাই সুইটস এন্ড বেকারী, ফেনীর লিং আফ স্টিল মিলস লিমিটেড, মদিনা পলিমার ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেড, ভোজন বিলাস, লক্ষীপুরের কসমিক ইলেকট্রনিক্স এন্ড মটরস ও মোহাম্মদিয়া হোটেল এন্ড চাইনিজ।

এদিকে করোনা পরিস্থিতি কিছুটা স্বাভাবিক হওয়ায় এ বছর ভ্যাট দিবস (১০ ডিসেম্বর) উদযাপন করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে এনবিআর। সীমিত পরিসরে আয়োজিত ভ্যাট দিবসে প্রধান অতিথি হিসাবে অর্থমন্ত্রী আ হ ম মোস্তফা কামালকে রাখার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

ভ্যাট দিবস ও ভ্যাট সপ্তাহ উদযাপন উপলক্ষে গঠিত কেন্দ্রীয় স্টিয়ারিং কমিটির এক সভা থেকে এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। প্রসঙ্গত, প্রতিবছর ১০ ডিসেম্বর জাতীয় ভ্যাট দিবস উদযাপন করে থাকে এনবিআর।