কিলার আব্বাসের ক্রিমিনাল রেকর্ড হাইকোর্টে তলব

সরকার ঘোষিত শীর্ষ সন্ত্রাসী কিলার আব্বাসকে আদালতে হাজির করার কেন নির্দেশ দেওয়া হবে না, তা জানতে চেয়ে রুল জারি করেছেন হাইকোর্ট।

একইসঙ্গে কিলার আব্বাসের নাম, পরিচয় ও তার ক্রিমিনাল রেকর্ড সংক্রান্ত প্রতিবেদন আইজিপিসহ সংশ্লিষ্টদের আদালতে দাখিল করতে বলা হয়েছে। মঙ্গলবার বিচারপতি মামনুন রহমান ও বিচারপতি খোন্দকার দিলীরুজ্জামানের হাইকোর্ট বেঞ্চ এ আদেশ দেন।

প্রায় ১৯ বছর ধরে কারাবন্দি ‘শীর্ষ সন্ত্রাসী কিলার আব্বাস’ ওরফে আব্বাস আলীকে কারাগারে রাখার বৈধতা চ্যালেঞ্জ করে হাইকোর্টে রিট দায়ের করা হয়েছে। রিটকারী আইনজীবী সাকির আহমেদ বাপ্পী জানান, ১১টি মামলায় আব্বাস আলী খালাস পেয়েছেন। ডাকাতির অভিযোগে একটি মামলা বিচারাধীন রয়েছে। ২০১৬ সালে ওই মামলাতেও জামিন পেয়েছেন। তারপরও তাকে কারাগারে আটক রাখা হয়েছে বলে রিটটি দায়ের করা হয়েছে।

রিট আবেদনে আব্বাসকে আদালতের সন্তুষ্টি সাপেক্ষে হাজির করা, তার ক্রিমিনাল রেকর্ড দাখিল এবং পুলিশের ওয়েবসাইট থাকা মোস্ট ওয়ান্টেড তালিকা থেকে তার নাম অপসারণের নির্দেশনা চাওয়া হয়েছে।

রিট আবেদনে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় সচিব, আইন মন্ত্রণালয় সচিব, পুলিশের আইজি র‌্যাবের ডিজি, ডিএমপি কমিশনার, ঢাকা জেলা প্রশাসকসহ সংশ্লিষ্টদের বিবাদী করা হয়েছে।

প্রসঙ্গত, এর আগে ২০০৩ সালের ১৪ ফেব্রুয়ারি বনানী থেকে গ্রেফতার হন আব্বাস। তখন থেকে কাশিমপুর কারাগারে রয়েছেন তিনি। ‘কিলার আব্বাস’ নামে পরিচিত এই ব্যক্তির পুরো নাম আব্বাস আলী। তার বাবার নাম সাহাবুদ্দীন ওরফে তমিজ উদ্দীন। তার পরিবার থাকে উত্তর কাফরুলে।