বাতের সমস্যা বাড়িয়ে দেয় যে খাবার

বাতের ব্যথার কষ্ট ভুক্তভোগী মাত্রই জানেন। এই এক সমস্যা জীবনের আর সব আনন্দকে মাটি করে দিতে পারে। অনেকের ধারণা হলো, বাতের সমস্যা কেবল বয়স বাড়লেই দেখা দেয়। আসলে তা নয়। এই সমস্যা হতে পারে যেকোনো বয়সেই। সুস্থ থাকার জন্য কী খাচ্ছি সেদিকে খেয়াল রাখা সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ। এমন কিছু খাবার রয়েছে যেগুলো খেলে বাতের সমস্যা আরও বেড়ে যেতে পারে। সেসব খাবার সম্পর্কে জেনে রাখা এবং সেগুলো এড়িয়ে চলা জরুরি।

প্রক্রিয়াজাত খাবার

বাতের ব্যথা বাড়িয়ে দিতে পারে প্রক্রিয়াজাত খাবার। হতে পারে তা ক্যান ফুড, বেকড ফুড, ফ্রোজেন ফুড, ফাস্ট ফুড কিংবা প্যাকেটজাত স্ন্যাকস। এসব খাবার তৈরিতে যে ধরনের উপকরণ ব্যবহার করা হয় সেগুলো বাতের সমস্যা বৃদ্ধি করতে পারে। প্রক্রিয়াজাত খাবারে থাকে প্রচুর লবণ, চিনি ও ফ্যাট। এসবই প্রদাহ বাড়িয়ে দিতে কাজ করে। এছাড়াও অতিরিক্ত লবণ খাওয়ার কারণে বাড়তে পারে স্থুলতা, কমে যেতে পারে ইনসুলিনের উৎপাদন। এগুলো বাতের ব্যথাকে আরও প্রভাবিত করে। তাই প্রক্রিয়াজাত খাবার যতটা সম্ভব এড়িয়ে চলুন।

লবণ

আমাদের শরীরের জন্য লবণ হলো গুরুত্বপূর্ণ খনিজ। তবে এটি বেশি খাওয়া কখনোই উপকারী নয়। বিভিন্ন গবেষণায় দেখা গেছে, যেসব খাবারে লবণ বেশি থাকে সেগুলো বাতের ব্যথা বাড়িয়ে তুলতে পারে। তাই বাতের সমস্যা এড়াতে অতিরিক্ত লবণ খাওয়ার অভ্যাস বাদ দিতে হবে।

চিনিযুক্ত পানীয়

তৃষ্ণা মেটাতে নানা ধরনের পানীয় আমরা পান করে থাকি। সব পানীয় কিন্তু শরীরের জন্য উপকারী নয়। কোল্ড ড্রিংকস, ফলের রস, চিনিযুক্ত চা এবং অন্যান্য মিষ্টিযুক্ত পানীয়গুলোতে প্রচুর চিনি থাকে। বিভিন্ন গবেষণায়ও প্রমাণিত হয়েছে যে, চিনিযুক্ত পানীয় বাতের ব্যথা বাড়াতে কাজ করে। তাই বাতের ব্যথা থেকে বাঁচতে চাইলে চিনিযুক্ত পানীয় পান করার অভ্যাস কমাতে হবে।

রেড মিট

রেড মিট খেতে যতই সুস্বাদু লাগুক না কেন, বাতের সমস্যা থাকে এটি খাওয়ার ক্ষেত্রে হ্রাস টানতে হবে। কারণ এই মাংসে ফ্যাট এবং স্যাচুরেটেড ফ্যাটের মাত্রা থাকে তুলনামূলকভাবে বেশি। বিভিন্ন গবেষণায় প্রমাণিত, অতিরিক্ত রেড মিট খেলে তা প্রদাহের মাত্রা বাড়িয়ে দেয়। এর ফলে জয়েন্টের ফোলাভাব এবং বাতের ব্যথা আরও বেড়ে যায়।

ওমেগা-৬ ফ্যাটি অ্যাসিড

প্রদাহ বিরোধী হিসেবে কাজ করে উপকারী ওমেগা-৩ ফ্যাটি অ্যাসিড। কিন্তু ওমেগা-৬ পলিআনস্যাচুরেটেড ফ্যাটি অ্যাসিড প্রদাহ সৃষ্টিকারী। ওমেগা-৬ ফ্যাটি অ্যাসিড আর্থ্রাইটিসের রোগীর জন্য মারাত্মক ক্ষতি ডেকে আনতে পারে। ওমেগা-৬ অতিরিক্ত খেলে প্রদাহ বেড়ে যায়। সয়াবিন, বাদাম, মাংস, ভুট্টা, সূর্যমুখী তেল ইত্যাদিতে ওমেগা-৬ ফ্যাটি অ্যাসিড থাকে।

ভাজাপোড়া

যাদের বাতের সমস্যা রয়েছে তারা ভাজাপোড়া জাতীয় খাবার এড়িয়ে চলাই উত্তম। এ ধরনের খাবারে স্যাচুরেটেড ফ্যাট এবং ওমেগা-৬ ফ্যাটি অ্যাসিডের মাত্রা থাকে অনেক বেশি। এই দুই ফ্যাট প্রদাহ বাড়ানোর পাশাপাশি বাতের ব্যথাও বাড়িয়ে দেয়।