এফ-১৬ যুদ্ধবিমান নিয়ে বাইডেনের আচরণ ইতিবাচক: এরদোগান

যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনের সঙ্গে এফ-১৬ যুদ্ধবিমান কেনার বিষয়ে আলোচনা করেছেন তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়েপ এরদোগান। বৈঠকে এ বিষয়ে বাইডেনের ‘আচরণ ইতিবাচক’ ছিল বলে জানিয়েছেন তুরস্কের প্রেসিডেন্ট।

রোববার ইতালির রোমে এক সংবাদ সম্মেলনে তুরস্কের প্রেসিডেন্ট এ কথা জানান। খবর ডেইলি সাবাহর। বাইডেন-এরদোগানের ৭০ মিনিট বৈঠকের পর তুরস্কের প্রেসিডেন্টের যোগাযোগ পরিচালকের দপ্তর এক বিবৃতিতে বলেছে, ইতিবাচক আবহে বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়েছে। এতে দ্বিপক্ষীয় সম্পর্কের বিভিন্ন বিষয়সহ আঞ্চলিক বিষয়াদি আলোচনা করা হয়েছে। বৈঠকে দুই নেতা যুক্তরাষ্ট্র-তুরস্ক সম্পর্ক শক্তিশালী এবং উন্নয়ন করতে একমত হন। এ লক্ষ্যে তারা পরবর্তীতে বিভিন্ন কর্মকৌশল গ্রহণের বিষয়েও সম্মত হন।

এরদোগান বলেন, আমাদের কাছে থাকা এফ-১৬ যুদ্ধবিমানের আধুনিকায়ন ও এই মডেলের নতুন যুদ্ধবিমান কেনা নিয়ে আলোচনা হয়েছে। সংবাদ সম্মেলনের আগে বাইডেন ও এরদোগান এক বৈঠকে মিলিত হন।

তুরস্কের কর্মকর্তারা জানিয়েছিলেন, রাশিয়ার কাছ থেকে এস৪০০ কেনার কারণে এফ-৩৫ নিয়ে চুক্তি ভেস্তে যাওয়ার পর এফ-১৬ যুদ্ধবিমান কেনার বিষয়ে যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে আলোচনা করছে তুরস্ক। এরদোগান জানিয়েছিলেন, আঙ্কারা এফ-৩৫ এর জন্য দেওয়া ১.৪ বিলিয়ন ডলার দিয়ে সস্তায় এফ-১৬ যুদ্ধবিমান কিনতে চায়।

যুক্তরাষ্ট্রের এক কর্মকর্তা বলেন, এফ-৩৫ এর ক্ষেত্রে যে সমস্যা হয়েছিল এফ-১৬ যুদ্ধবিমান কেনার ক্ষেত্রেও একই সমস্যা হতে পারে। তা ছাড়া যুক্তরাষ্ট্রের বিরোধিতা সত্ত্বেও তুরস্ক দ্বিতীয় দফায় এস-৪০০ ক্ষেপণাস্ত্র প্রতিরক্ষাব্যবস্থা কিনতে আগ্রহী।

এদিকে যুক্তরাষ্ট্রের কর্মকর্তারা বুধবার আঙ্কারায় এফ-৩৫ যুদ্ধবিমান সংক্রান্ত বিদ্যমান সমস্যার সমাধানে বৈঠকে মিলিত হয়েছিলেন। বৃহস্পতিবার যুক্তরাষ্ট্রের প্রতিরক্ষামন্ত্রী লয়েড অস্টিন তুরস্কের প্রতিরক্ষামন্ত্রী হুলুসি আকারের সঙ্গে কথা বলেন।