১৩ বছরের বালকের তৈরি প্রতিমায় দুর্গাপূজা

0
87

প্রেস বিডি ডেস্ক : মাত্র ১৩ বছরের বালকের তৈরি প্রতিমায় এবার প্রথমবারের মত দুর্গাপূজা উদযাপিত হচ্ছে ঝালকাঠির কুনিহাড়ি গ্রামের হাওলাদার বাড়ির পুজামণ্ডপে।

১৩ বছরের এই বালকের নাম বিধান দাস। সদ্য প্রাথমিক বিদ্যালয়ের গন্ডি পার হয়েছে। সে কুনিহাড়ি গ্রামেরই শ্রমজীবি বিমল কুমার দাসের ছেলে।

সরেজমিনে জানা গেছে, দুর্গাপূজার সময় দেশের বিভিন্ন স্থান থেকে মৃৎশিল্পীরা ঝালকাঠিতে এসে প্রতিমা তৈরি করেন। আর গত ক’বছর ধরে বিধান তা মনযোগ সহকারে দেখে আসছিল। এরপর একাগ্রতা নিয়ে গত বছর থেকে বিভিন্ন পূজার প্রতিমা তৈরি করছে সে। নিপুণ হাতের ছোঁয়ায় তৈরি করেছে কালী, সরস্বতীসহ নানা প্রতিমা। প্রতিমা তৈরিতে কোন প্রাতিষ্ঠানিক প্রশিক্ষণ নেই তার। অন্য কারিগরদের কাজ দেখেই তার এই প্রতিমা তৈরি শেখা।

গত বছর বাড়ির আঙিনায় প্রথমবার দুর্গাপ্রতিমা তৈরি করে বিধান। তারপরই সবার নজরে আসে তার এ শিল্পী প্রতিভা। এবছর ক্ষুদে এই শিল্পী দুর্গাপ্রতিমা তৈরি করে এলাকায় সারা জাগিয়েছে। বিধানের তৈরি করা প্রতিমায় হাওলাদার বাড়িতে যথানিয়মে উৎসাহ উদ্দীপনায় দুর্গোৎসব শুরু হয়েছে।

বিধানের বাবা বিমল দাস জানান, দু’বছর আগে ঝালকাঠি শহরের কালীবাড়ি মন্দিরে প্রতিমা তৈরির কাজ দেখে ছেলে প্রতিমা তৈরির কারিগর হওয়ার ইচ্ছা পোষণ করে। বয়সে ছোট আর পারিবারিক আর্থিক সংকট থাকায় ছেলের এ ইচ্ছাকে গুরুত্ব দেয়া হয়নি। পরে নিজেই মাটি ও আনুসাঙ্গিক দ্রব্য জোগাড় করে এক পর্যায়ে গত বছর ঘরের বারান্দার দুর্গাপ্রতিমা তৈরি করে।

স্থানীয় ইউনিয়ন চেয়ারম্যান তা দেখে দুই হাজার টাকা পুরস্কার দেন।আর এতে উৎসাহ বেড়ে যায় । এবছর দুর্গাপূজার দুমাস আগ থেকেই বাড়ির আঙিনায় শুরু করে প্রতিমা তৈরির কাজ। নির্দিষ্ট সময়ে প্রতিমা তৈরি করা হলে প্রথমবারের মত প্রশাসন নির্ধারিত মণ্ডপ হিসেবে তালিকাভুক্ত হয় হাওলাদার বাড়ি পূজামণ্ডপ। আর তাতে মহাখুশি ক্ষুদে প্রতিমা কারিগর বিধান দাস ও স্বজনরা।

কুনিহাড়ি গ্রামের হাওলাদার বাড়ির পূজামণ্ডপ পরিচালনা কমিটির সাধারণ সম্পাদক সুধাংশু চন্দ্র এদবর বলেন, ‘ বিধান দাসের আত্মবিশ্বাস ও সাহস দেখে আমরা হতবাক। তার প্রতিভা সত্যিই প্রশংসনীয়। পাল বংশের সন্তান না হয়েও কোন প্রাতিষ্ঠানিক প্রশিক্ষণ ছাড়াই বিধান যে প্রতিমা তৈরির কারিগর হয়ে উঠছে তা সত্যিই বিরল ঘটনা। তাকে সঠিকভাবে পৃষ্ঠপোষকতা করা হলে নিজেকে আরো দক্ষ প্রতিমা শিল্পী হিসেবে তৈরি করতে পারবে।’

হাওলাদার বাড়ির দুর্গাপূজা উদযাপন কমিটির সভাপতি সঞ্জিব হাওলাদার জানান, এ মন্ডপের পুজায় অংশগ্রহণকারীরা বিগত বছরগুলোতে আশেপাশের বিভিন্ন মণ্ডপে পূজা দিতো। প্রতিমা তৈরিতে মোটা অংকের টাকা খরচ হত বিধায় এখানে পূজা আয়োজন করা সম্ভব হত না। এবছর বিমল দাসের ছেলে বিধান এত অল্পবয়সেই দক্ষ কারিগরের মত দুর্গাপ্রতিমা তৈরি করে পুজা আয়োজন করায় আমরা আনন্দিত। প্রত্যাশা করি সে ভবিষ্যতে অনেক বড় মৃৎশিল্পী হয়ে হবে।

আলাপকালে বিধান বলেন, ‘আমার তৈরি করা প্রতিমায় এ বছর হাওলাদার বাড়িতে প্রথম পূজা উদযাপন করা হচ্ছে। এটা অনেক বেশি আনন্দের।’

এদিকে মাত্র ১৩ বছর বয়সে দুর্গাপ্রতিমা তৈরি করে পূজা উদযাপন করার খবরে দর্শনার্থীদের ভিড় বাড়ছে হাওলাদার বাড়ির পুজা মন্ডপে।

LEAVE A REPLY