বন্দরে ড্রেনে গ্যাস লাইন লিকেজ গ্যাস জমে আগুন ও বিস্ফোরণ

0
28

মো: সহিদুল ইসলাম শিপু:বন্দরে নাসিকের ড্রেনে তিতাস গ্যাস লাইনে লিকেজ থাকায় গ্যাস জমে বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটেছে। এসময় ড্রেনের ভেতর আগুন লেগে ছিদ্র দিয়ে বের হতে শুরু করলে ফায়ার সার্ভিসের দুইটি গাড়ি এসে আগুন নেভায়।

২৮মার্চ শনিবার সকাল সোয়া ৮টায় নাসিক ২৪নং ওয়ার্ড এলাকায় কবি নজরুল সড়কে এই বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটে। ৯৯৯ থেকে সংবাদ পেয়ে বন্দর ফায়ার সার্ভিসের টিম আগুন নেভাতে আসেন বলে জানান বন্দর ফায়ার সার্ভিসের ফায়ার ম্যান মোঃ আতিক। ঘটনাস্থলে গিয়ে দেখা যায়, ড্রেনের স্লাবের সংযোগের ইটের গাঁথুনীর কয়েকটি ইট বিস্ফোরণে ছিঁটে পড়ে আছে এবং এর আশেপাশের স্লাবগুলো ঢালাইয়ের উপর ফাটল সৃষ্টি হয়ে আল্গা হয়ে গেছে। প্রায় ৫০ ফুট দুরে স্লাবের (বর্জ্যের গ্যাস নির্গমণের জন্য তৈরী স্লাবের ছিদ্র) ছিদ্র দিয়ে আগুন বের হচ্ছে। এরই মধ্যে ফায়ার সার্ভিসের দুইটি গাড়ি এসে স্লাব তুলে আগুন নেভায়। ড্রেনের পানির নিচ থেকে খুবই দ্রুত গতিতে বের হচ্ছে গ্যাস।

লিকেজ মেরামত করা না হলে যে কোন সময় অসাবধানতাবশত বড় ধরণের ক্ষতির আশংকা করছে এলাকাবাসি। উল্লেখ্য, বিস্ফোরণ ও আগুনের মাঝামাঝি স্থানে ড্রেনের ভেতরের উপরিভাগ দিয়ে সোহাগ পুর টেক্সাটাইল মিলস এর অরক্ষিত ৩৩,০০০ (তেত্রিশ হাজার) ভোল্টেজের বিদ্যুত লাইনের ক্যাবল নেয়া হয়েছে। যা আগুনবান্ধব পিভিসি পাইপের ভেতর দিয়ে নেয়া হয়েছে। এই পিভিসি পাইপ এবং ক্যাবলের ইন্সুলেশন আগুনের তাপে গলে শর্ট-সার্কিট তৈরী হয়ে বড় ধরণের বিপদের সৃষ্টি হতে পারে। এ ব্যাপারে এলাকাবাসি সাংবাদিকদের জানায়, সকাল সোয়া ৮টায় হঠাৎ বিকট শব্দে বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটলে আশ পাশের বাড়ি-ঘর কেঁপে উঠে। এই সময় ভয় পেয়ে লোকজন রাস্তায় বের হয়ে আসে।

কবি নজরুল স্কুল এর গেট সংলগ্ন সংযোগ ড্রেনের এর কাছে কয়েকটি ইট বিস্ফোরিত হয়ে না পড়লে স্লাব বিস্ফোরণে আশে পাশের ভবন গুলোতে বড় ধরণের ক্ষতি হতে পারতো। এসময় এলাকাবাসি আরও জানায় প্রায় ৭/৮মাস আগেও এখানে ড্রেনের নিচে আগুন লাগার ঘটনা ঘটেছে। তখনকার আগুন ছিল আরো বেশী। যা সোহাগপুর কটন মিলস এর অরক্ষিত ৩৩,০০০ (তেত্রিশ হাজার) ভোল্টেজের বিদ্যুত লাইন থেকে মাত্র দুই ফুট দুরে ছিল। দ্রুত ব্যবস্থা না নিলে তখনও বড় ধরণের ক্ষতির মুখে পড়তো এলাকাবাসি। এ বিষয়ে বড় ধরণের ক্ষতির মুখ থেকে রক্ষা করার জন্য যথাযথ কর্তৃপক্ষের হস্তক্ষেপ কামনা করছে এলাকাবাসি।

LEAVE A REPLY