করোনা ভাইরাস ইস্যুতে বেকার হয়ে পরেছেন গণমাধ্যমের কর্মিরা

0
11

স্টাফ রিপোর্টার: বৈশ্বিক মহামারি রূপ নেয়া করোনাভাইরাসের ইস্যুতে বেকার হয়ে পরছেন গণমাধ্যম কর্মিরা। সাংবাদিকদের সমাজের আয়না বা দর্পন বলা হয়ে থাকে। জীবনের ঝুকি নিয়ে এই পেশার কর্মরত সাংবাদিকরা সমাজের বাস্তব চিত্ররুপ তুলে ধরতে সকাল হতে রাত পর্যন্ত সংবাদের সেবা প্রদান করে থাকে এবং সেই সংবাদ পরবর্তি দিনে সংবাদের পাতায় প্রকাশিত হয়। বিনিময়ে তারা কোন বেতন পাচ্ছেন না তবে সভা সমাবেশ আয়োজকরা এর কিছুটা খরচ বহন করে থাকে, সেখান থেকে একজন গণমাধ্যমের কর্মি তার পারিশ্রমিক কিছু অর্থ পেয়ে থাকেন।

প্রেসক্লাব গুলোতে একটি ফান্ড থাকে সেই ফান্ড হতে মাঝে মধ্যে অনুদান দেওয়া হয় মৃত ব্যাক্তি পরিবারদের। আর প্রেসক্লাব সদস্যগণ বেতন ভাতা সহ যে কোন সুযোগ সুবিধা পেয়ে থাকেন সরকারী দপ্তর হতে কিন্তু যে সকল মাঠ পর্যায়ের কর্মি আছেন তারা কোন দপ্তর হতে কোন প্রকার সুযোগ সুবিধা এ যাবৎ পায়নি তাহেলে এরা এখন কোথায় যাবে বর্তমান সংকট মোকাবেলা করতে ? অধিকাংশ সংবাদ কর্মি বিনা বেতনে কাজ করে থাকেন কিন্তু এই অসহযোগ দুযোর্গে সভা সমাবেশ বন্ধ থাকায় তাদের আয়ের উৎসহ অনিদিষ্ট কালের জন্য বন্ধ হয়ে পরেছে। একারনে প্রতিনিয়ত তারা নিজেদের সংসার চালাতে হিমসিম খাচ্ছে এই করোনা ভাইরাস ইস্যুতে।

অনেক সংবাদ কর্মি আছেন যারা দিন আনে দিন খায়, তাদের অবন্থা আরো কঠিন হয়ে পরেছে বর্তমান জীবন যাপন চালাতে। বর্তমান সরকার দেশের যে কোন দূর্যোগ মোাকবেলা করতে প্রস্তুত সেক্ষেত্রে যারা সংবাদের সেবা করেন,সংবাদ সংগ্রহে করোনাভাইরাস প্রতিরোধে মাঠে ময়দানে কাজ করছেন তারা কি সরকারের সুযোগ সুবিধার আওতায় পরে না ? জেলা প্রশাসককে দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে যেন জেলার মানুষ গুলো কোন কষ্টে না থাকে কিন্তু সংবাদ কর্মিদের পাশে কে দাড়াবেন? দেশের অন্যান্য জেলার ন্যায় নারায়ণগঞ্জে সংবাদ কর্মি অনেকটাই বেশি কিন্তু এই দূর্যোগ মোকাবেলায় তারা সরকারকে সহযোগিত করতে হাত বাড়িয়ে দিয়েছেন। তারা মনে করেন সরকার আমাদের কথা ভাববেন কিন্তু দুষ্ট লোকের প্ররোচনায় প্রশাসন মহলকে ভুল বুঝিয়ে বিভ্রান্ত করার পায়তারা চালাই একটি মহল।

আবার দেখা যায় ভেদাভেদ সৃষ্টি করে সরকারের সুযোগ সুবিধা ফায়দা লুটছে সংবাদ পত্রের একটি মহল যা অধুরাই থেকে যায়। প্রেসক্লাব কিংবা যে কোন ইউনিয়ন সদস্য যদি তারা নিজেদের কথা চিন্তা করেন তাহলে খেটে খাওয়া সংবাদ কর্মিরা আজীবন বঞ্চিত হবেন সুযোগ সুবিধা হতে। তাই কোন ভোদাভেদ সৃষ্টি না করে এই দূর্যোগ মোকাবেলায় সকলকে সহযোগিতা করে আত্মমানবতার পাশে দাড়াতে হবে বলে মনে করেন মাঠ পর্যায়ের সংবাদকর্মিগণ। ভেদাভেদ নয় ঐক্যতায় পারে সংকট মোকাবেলা করতে।

LEAVE A REPLY